1. admin@banglabahon.com : Md. Sohel Reza :
বৃহস্পতিবার, ১৩ মে ২০২১, ১২:২৯ পূর্বাহ্ন
আপনিও লিখুন:
‘বাংলা বাহন’ নিউজপোর্টালে আপনাদের মতামত, পরামর্শ, সমসাময়িক কোন বিষয়ে লেখা, বিশ্লেষণ, তথ্য, ছবি ও ভিডিও পাঠাতে পারেন banglabahonbd@gmail.com ঠিকানায়।

মিস ইংল্যান্ডের মুকুট খুলে এবার করোনা চিকিৎসায় বাঙালি তরুণী

ডেড লাইন
  • প্রকাশ: মঙ্গলবার, ৭ এপ্রিল, ২০২০

সুন্দরী প্রতিযোগিতার মুকুট খুলে এবার করোনা রোগীদের চিকিৎসায় স্টেথোস্কোপ নিয়ে সরাসরি যুদ্ধে নামছেন ২০১৯ সালের মিস ইংল্যান্ড ভাষা মুখোপাধ্যায়।

তার আরেক পরিচয় তিনি একজন চিকিৎসক। কলকাতায় ব্রিটিশ হাইকমিশনের সঙ্গে এতদিন সামাজিক কাজে যুক্ত ছিলেন ভাষা। খবর সিএনএনের।

মার্চের শুরুতে নিজের জন্মস্থান ভারতে দাতব্য প্রতিষ্ঠান কভেন্ট্রি মার্সিয়া লায়ন্স ক্লাবের আমন্ত্রণে চার সপ্তাহের জন্য এসেছিলেন মিস ইংল্যান্ড।

এখানে স্কুলশিক্ষার্থীদের সচেতন করে তুলতে ও প্রতিবন্ধীদের সাহায্যে কাজ করছিলেন তিনি। নটিংহ্যাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে চিকিৎসা বিজ্ঞানে স্নাতক এ বঙ্গতনয়া।

ইংল্যান্ডে করোনা আক্রান্তদের সংখ্যা বৃদ্ধি দেখে তিনি আর স্থির থাকতে পারেননি। করোনার মোকাবেলায় ফিরে যাচ্ছেন তার পুরনো কাজের জায়গায়।

ভাষা সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, এই সময় তার ইংল্যান্ডের পাশে থাকাই সবচেয়ে জরুরি। একজন ডাক্তার হিসেবে তার এখন পিলগ্রিম হাসপাতালে কাজ করা উচিত।

তিনি আরও বলেন, আমি আমার সহকর্মীদের কাছে ওই অঞ্চলের খবর নিয়মিত শুনছি। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব আমি কাজে যোগ দিতে চাই।

গত বুধবার ইংল্যান্ডে ফিরেছেন তিনি। ফিরে সরাসরি কাজে যোগ দিতে পারেননি। নিয়ম মেনে তাকেও সপ্তাহ দুয়েক গৃহবন্দি থাকতে হচ্ছে।

তার পর তিনি কাজে যোগ দেবেন বলে জানিয়েছেন ভাষা। উল্লেখ্য, বোস্টনের এই হাসপাতালেই জুনিয়র চিকিৎসক পদে চাকরি করতেন চিকিৎসা বিষয়ে দুটি পৃথক ডিগ্রিধারী ভাষা।

ভারতীয় বংশোদ্ভূত এই বাঙালি তরুণী ভাষা মুখোপাধ্যায় ২০১৯ সালের মিস ইংল্যান্ড প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়ার জন্য চিকিৎসা পেশা ছেড়েছিলেন।

সে বছর প্রতিযোগিতায় সেরা নির্বাচিত হওয়ার পর মডেলিংয়ে যোগ দেন তিনি। তবে এবার করোনাভাইরাসের মোকাবেলায় পুরনো পেশায় ফিরে যাচ্ছেন তিনি।

শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও সংবাদ...
© বাংলা বাহন সকল অধিকার সংরক্ষিত ২০২০-২০২১।
ডিজাইন ও আইটি সাপোর্ট: বাংলা বাহন