1. admin@banglabahon.com : Md. Sohel Reza :
পাকিস্তানকে সন্দেহের চোখে আফগানিস্তান | বাংলা বাহন
বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১, ০৯:০৪ পূর্বাহ্ন
আপনিও লিখুন:
‘বাংলা বাহন’ নিউজপোর্টালে আপনাদের মতামত, পরামর্শ, সমসাময়িক কোন বিষয়ে লেখা, বিশ্লেষণ, তথ্য, ছবি ও ভিডিও পাঠাতে পারেন info@banglabahon.com ঠিকানায়।

পাকিস্তানকে সন্দেহের চোখে আফগানিস্তান

বিদেশ ডেস্ক
  • প্রকাশ: সোমবার, ১২ জুলাই, ২০২১
Flag_Pak_Afga

আফগানিস্তানের বর্তমান অস্থিরতার জন্য পাকিস্তানকে দায়ী করছে আফগান সংবাদমাধ্যম ও রাজনীতি বিশেষজ্ঞদের একাংশ৷ তাদের মত, পাকিস্তানের প্রচ্ছন্ন তালেবান সমর্থন মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের আবহে অস্থিরতাকে প্রশ্রয় দিচ্ছে৷

যদিও পাকিস্তানের ওপর করা এই অভিযোগ নতুন কিছু নয়৷ পাকিস্তান তালেবান গোষ্ঠীদের আশ্রয় ও সামরিক সমর্থন দিয়ে এসেছে বলে আফগান সরকারের তরফ থেকেও অভিযোগ উঠেছে৷ দুই দশক দীর্ঘ মার্কিন সেনা অবস্থানের শেষে নতুন করে আলোচনায় এসেছে এই বিষয়টি৷

এ ব্যাপারে আফগান রাজনীতিক আবদুল সাত্তার হুসেইনি সম্প্রতি একটি টিভি শোতে বলেছেন, আপনারা নিশ্চয়ই জানেন যে আমরা পাকিস্তানের হাতে আক্রান্ত৷ আমরা শুধু তালেবানের বিরুদ্ধে লড়ছি না, আমরা পাকিস্তানের সঙ্গে এই মেকি যুদ্ধেও জড়িত৷ তালেবানদের আফগানিস্তানের জন্য কোনো পরিকল্পনা নেই, আর আমরাও পাকিস্তানের উদ্দেশ্য মেনে নিতে রাজি নই৷

পাকিস্তান অবশ্য এই সব অভিযোগকে স্বীকার করে না।তবে তালেবানের সঙ্গে পাকিস্তানের এই সখ্যতা আফগানরা সহজভাবে নেন না৷

গত মাসে পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশি একটি আফগান টিভি শোতে উপস্থাপক পাকিস্তানে কিছু তালেবান নেতাদের অবস্থান করা প্রসঙ্গে প্রশ্ন করেন৷ মন্ত্রী জানান যে তিনি এ বিষয়ে অবগত নন৷ মন্ত্রী বারবার উপস্থাপককে বোঝাতে চেষ্টা করেন যে এসব অভিযোগ ভিত্তিহীন, কিন্তু উপস্থাপকের সব প্রশ্নের জবাব দিতে পারেননি তিনি৷ বিশেষজ্ঞদের মতে, এই ধরনের অনুষ্ঠানে প্রায়ই পাকিস্তানের একটি নেতিবাচক রূপ তুলে ধরা হয়৷

কাবুলের সাংবাদিক শারিফ হাসানিয়ার গণমাধ্যমকে বলেন, আফগান-পাক সম্পর্ক চার দশকেরও বেশি সময় ধরে এমন থেকেছে৷ বেশিরভাগ আফগানরাই পাকিস্তানকে নেতিবাচকভাবে দেখে কারণ নব্বইয়ের দশকে ইসলামাবাদ তালেবান ও মুজাহিদিনকে সমর্থন করেছিল৷

২০১৫ সালে ইমরান খান বলেছিলেন যে তার হাসপাতালে এক আহত তালেবান যোদ্ধার চিকিৎসা হয়েছিল৷ সম্প্রতি পাক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ রাশিদ বলেন যে তালেবান সদস্যদের পরিবার পাকিস্তানে রয়েছে৷

যেহেতু এই দুই দেশের অভ্যন্তরীণ সমস্যার প্রভাব দুই দেশের মধ্যে বড় ভূমিকা রাখে, সেক্ষেত্রে মার্কিন সামরিক বাহিনী প্রত্যাহারের ফলাফলও এখানে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠবে বলে আশা করা হচ্ছে।

এ ব্যাপারে পাক কর্মকর্তাদের জানান, দুই দেশের মধ্যে সম্পর্ক উন্নতি করতে হলে কাবুলকে এই ধরনের অভিযোগ আনা বন্ধ করতে হবে৷

শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও সংবাদ...
© বাংলা বাহন সকল অধিকার সংরক্ষিত ২০১৯-২০২১।
ডিজাইন ও আইটি সাপোর্ট: বাংলা বাহন