1. admin@banglabahon.com : Md Sohel Reza :
পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভার নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু
সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ০৫:৫০ অপরাহ্ন

পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভার নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু

ওপার বাংলা ডেস্ক
  • প্রকাশ: শনিবার, ২৭ মার্চ, ২০২১

ভারতের পশ্চিমবঙ্গে শনিবার সকাল সাতটা থেকে বিধানসভা নির্বাচনে প্রথম দফায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। ভোট শেষ হবে সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায়।

এই রাজ্যের ২৯৪টি আসনের মধ্যে ৫ জেলার ৩০টি আসনে শনিবার প্রথম দফায় ভোট চলছে।

৫ জেলার মধ্যে প্রথম দফায় ঝাড়গ্রাম ও পুরুলিয়ার সব ক’টি আসনেই ভোটগ্রহণ চলছে। বাকি ৩ জেলায় আংশিক। পুরুলিয়ায় ভোটগ্রহণ হচ্ছে জেলার ৯টি আসনেই। এ ছাড়া পশ্চিম মেদিনীপুরের ৬টি এবং পূর্ব মেদিনীপুরের ৭টি আসনে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। এ ছাড়াও ভোটগ্রহণ হচ্ছে বাঁকুড়ার চারটি আসনে।

নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিপুল সংখ্যক কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য ও পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

এ দফায় গুরুত্বপূর্ণ প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছেন— মেদিনীপুরে তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী অভিনেত্রী জুন মালিয়া এবং পুরুলিয়ার বাঘমুন্ডি কেন্দ্রে কংগ্রেসের পুরোনো নেতা নেপাল মাহাতো।

এই ৩০ আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের ১৯১ জন প্রার্থী। তবে সবচেয়ে বেশি প্রার্থী রয়েছে তৃণমূল কংগ্রেসে ও বিজেপিতে।

তৃণমূল ৩০টি আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য মনোনয়নপত্র জমা দিলেও পুরুলিয়ার জয়পুর আসনে তৃণমূল প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল হয়ে যায়। ফলে তৃণমূল লড়ছে ২৯টি আসনে।

এ আসনে তৃণমূল সমর্থন দিয়েছে একজন নির্দলীয় প্রার্থীকে। অন্যদিকে বিজেপিও লড়ছে ২৯টি আসনে। বিজেপি একটি আসন ছেড়ে দিয়েছে তাদের জোট শরিক অল ঝাড়খন্ড স্টুডেন্টস ইউনিয়ন প্রার্থী আশুতোষ মাহাতকে।

সিপিএম লড়ছে ১৮টিতে। বামফ্রন্ট শরিক সিপিআই ৪টি, ফরোয়ার্ড ব্লক ২, আরএসপি ২ এবং কংগ্রেস লড়ছে ২টি আসনে। জঙ্গলমহল এলাকাটি বরাবর বামপন্থীদের ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত ছিল। এখানে বামেরাই দীর্ঘদিন ধরে শাসন করে আসছে।

তবে বামফ্রন্টের শেষ আমলে এখানে সংঘবদ্ধ হয় মাওবাদীরা। বেড়ে যায় মাওবাদী তৎপরতা। এ কারণে এই জঙ্গলমহল হয়ে ওঠে মাওবাদীদের ঘাঁটি। ২০১১ সালের আগে থেকেই তৃণমূল নেত্রী মমতা ব্যানার্জি বামফ্রন্টের বিরুদ্ধে অবস্থান নেন।

২০১১ সালের নির্বাচনে মমতা ৩৪ বছরের বাম শাসনের অবসান ঘটিয়ে ক্ষমতায় আসেন। তার প্রতিশ্রুতি অনুসারী অনেক মাওবাদীকে কর্মসংস্থানের ও আর্থিক প্যাকেজের সুবিধা দিয়ে ফিরিয়ে আনেন জীবনের মূল স্রোতে। কিন্তু এ ডাকে সাড়া দেননি মাওবাদীদের কেন্দ্রীয় নেতা কিষেণজি।

পরে এই কিষেণজিই পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ২০১১ সালের ২৪ নভেম্বর নিহত হন। সেই ঐতিহাসিক জঙ্গলমহলের চারটি জেলা এবং পূর্ব মেদিনীপুরের আংশিক এলাকায় আজ বিধানসভার নির্বাচন। জঙ্গলমহল এলাকাটি ক্ষুদ্র জাতিসত্তা ও তফসিলি জাতি–অধ্যুষিত।

সূত্র: আনন্দবাজার

শেয়ার করতে চাইলে...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও সংবাদ...
© বাংলা বাহন সকল অধিকার সংরক্ষিত ২০১৯-২০২৪।
ডিজাইন ও আইটি সাপোর্ট: বাংলা বাহন
error: Content is protected !!